টেলিভিশনে শ্লেষাত্মক ও বর্ণবাদী বিজ্ঞাপন

পুরুষতান্ত্রিক সমাজে নারী বিদ্বেষ কিংবা নারী বৈষম্য- এটা চলে আসছে শতাব্দীর পর শতাব্দী ধরে। এক সময় এটা ছিলো ভয়াবহ আকারে। কন্যাশিশু জীবিত কবর দেয়া হতো।

এখনও লিঙ্গভিত্তিক গণহত্যার কথা শোনা যায়। অবশ্য সেটা অনেকটা লোকচক্ষুর আড়ালে থাকলেও, নারীর প্রতি উদাসীনতা বিভিন্ন সময় বিভিন্নভাবে ফুটে ওঠেছে। মিডিয়া থেকে শুরু করে কর্মক্ষেত্রে সবখানেই একরকম তলানিতে রাখা হয় নারীদের। সম্প্রতি টেলিভিশনের একটি টিবিসি বা বিজ্ঞাপনেও এমন দৃষ্টিভঙ্গিরই ইঙ্গিত যেন ফুটে ওঠেছে। যা নিয়ে অনেকেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সমালোচনা করছেন।

কোলগেট’-এর একটি বিজ্ঞাপন সম্প্রতি নজর কাড়ে সচেতন দর্শকদের। ওই বিজ্ঞাপনেও বর্ণবাদেরই ইঙ্গিত রয়েছে বলে মনে করছেন অনেকেই। এ নিয়ে ফেসবুকে নিজের ওয়ালে লিখেছেন অস্ট্রেলিয়া প্রবাসী সাংবাদিক ফজলুল বারী। নিচে বিজ্ঞাপন সম্পর্কিত তার লেখাটি হুবহু তোলে ধরা হলো।

‘বাংলাদেশের টিভি চ্যানেলগুলোতে আপত্তিকর একটা বিজ্ঞাপন হরদম প্রচার করা হয়! কোলগেট টুথপেস্টের একটি বিজ্ঞাপন। এই বিজ্ঞাপনে তিনটি বালক ছেলে, একটি বালিকা মেয়ের উদ্দেশ্যে কটাক্ষ করে বলে, ‘এ তো মেয়ে, লেগে যাবে কান্নাকাটি করবে!’ আমার মতে এটি একটি বর্ণবাদী বিজ্ঞাপন। জেন্ডার ইস্যুতেও এটি আপত্তিকর, শ্লেষাত্মক এবং অপরাধমূলক।

নারী-পুরুষের বৈষম্য ভারত-বাংলাদেশ উভয় দেশেই সামাজিকভাবে এখনও বাস্তব সত্য। এখানে এই বিজ্ঞাপনে ছোট ছোট ছেলেদের মুখ দিয়ে বলানো হচ্ছে, মেয়েরা ছেলেদের চেয়ে দুর্বল! তাই তাদের মুখ দিয়ে মেয়েটির উদ্দেশ্যে ওই শ্লেষাত্মক সংলাপ বলানো হয়েছে।

অন্যদিকে গাড়ল কোলগেটওয়ালা বলার চেষ্টা করছে কোলগেট টুথপেস্ট দিয়ে দাঁত মাজে বলেই মেয়েটি আত্মবিশ্বাসী হয়! নারীর বিরুদ্ধে এমন একটি শ্লেষাত্মক, বর্ণবাদী, অপমানমূলক, আপত্তিকর বিজ্ঞাপন কীভাবে সবার সামনে জাতীয় টেলিভিশনগুলো নির্বিঘ্নে প্রচার চলছে তা অবিশ্বাস্য।

উন্নত সভ্য বিশ্বে এটি অকল্পনীয়। এর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ গড়ে তুলুন। নারীর বিরুদ্ধে শ্লেষাত্মক, বর্ণবাদী, অপমানমূলক, আপত্তিকর বিজ্ঞাপনটির প্রচার অবিলম্বে বন্ধ করতে হবে।’

 

লেখক: ফজলুল বারী, অস্ট্রেলিয়া প্রবাসী সাংবাদিক