ডায়াবেটিক রোগীরাও খেতে পারবেন মিষ্টি কুমড়া

স্বাস্থ্য: খুব পরিচিত সবজির মধ্যে একটি হচ্ছে মিষ্টি কুমড়া। নানাভাবে এটি খাওয়া হয়। ভাজি করে বা অন্যান্য তরকারির সঙ্গে মিষ্টি কুমড়া খাওয়া হয়ে থাকে। এ ছাড়া ভর্তা করেও খাওয়া যায় এটি। এটির বিচি বা বীজও স্বাস্থ্যের জন্য খুবই উপকারী।

সবজি বা বীজ যেভাবেই খাওয়া হোক, মিষ্টি কুমড়া খুবই পুষ্টিকর। বিশেষ করে ডায়াবেটিস প্রতিরোধেও এটি ভূমিকা রাখে।

টাইমস অব ইন্ডিয়া জানায়, স্নায়ু, দৃষ্টি ও ত্বকজনিত রোগের জন্য বেশ উপকারী মিষ্টি কুমড়া। হৃদরোগ প্রতিরোধেও ভূমিকা রাখে এটি। তবে মিষ্টি কুমড়া ডায়াবেটিস প্রতিরোধের জন্য দারুণ উপকারী। রক্তে শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণে এটি ভূমিকা রাখে।

গ্লাইসেমিক ইনডেক্স বা জিআই হচ্ছে রক্তে শর্করার মাত্রা পরিমাপের স্কেল। কোন খাবারগুলো আপনার রক্তে শর্করার মাত্রা কতটা বাড়ায় সেটি নির্দেশ করে এই স্কেল।

মিষ্টি কুমড়ার উচ্চ জিআই ৭৫ এবং নিম্ন জিআই হচ্ছে ৩। অনেকে উচ্চ জিআইর কারণে মিষ্টি কুমড়াকে ডায়াবেটিসের জন্য নিরাপদ নয় মনে করে থাকেন। তবে সেটি ভুল ধারণা, নিম্ন জিআইর কারণে এই সবজি ডায়াবেটিস প্রতিরোধের জন্য বেশ উপকারী।

তবে খুব বেশিমাত্রায় নয়। একজন ডায়াবেটিক রোগী  দিনে সর্বোচ্চ ৯০ গ্রাম মিষ্টি কুমড়া খেতে পারবেন।

আইনিউজ/এইচএ