বিএনপির চেয়েও কম দামে সার দিচ্ছি আমরা : কৃষিমন্ত্রী

আই নিউজ ডেস্ক: আওয়ামী লীগ সরকার বিএনপি যেই দামে সার দিতো সেই দামের চেয়েও কম দামে সার দিচ্ছে বলে জানিয়েছেন কৃষিমন্ত্রী আবদুর রাজ্জাক।

রোববার (২৯ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালে ১৪তম সিটি ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

এসময় তিনি বলেন, ‘আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় আসার পর গত এগারো বছরে সারের দাম এক টাকাও বাড়েনি।’

মন্ত্রী আরও বলেন, ‘৭২ টাকার সার আমরা ২২ টাকায়, ৯০ টাকার ডিএপি সার ২৫ টাকায়, পটাশিয়াম সার ৬০ টাকারটা ১৫ টাকায় দিয়েছি। সারের দাম আমরা আরও কমানোর চিন্তা করছি।’

মন্ত্রী বলেন, ‘আমরা চিন্তা করেছি ডিএপি সারের দাম আরও কমানোর। কৃষি মন্ত্রণালয়ের সচিব কেজিতে ৯ টাকা কমানোর প্রস্তাব করেছিলেন। আমি বলেছি কেজিতে ৫ টাকা কমানোর। ডিএপির দাম ২৫ থেকে ২০ টাকা করার একটি প্রস্তাব প্রধানমন্ত্রীর কাছে পাঠানো হবে।’

তিনি বলেন, দিন দিন কৃষি শ্রমিকের সংকট তৈরি হচ্ছে। বিশেষ করে ধান কাটা এবং রোপণের সময় শ্রমিকের খুব সংকট তৈরি হয়। শ্রমিকের সংকট তৈরি হওয়ার কারণে আমরাও কৃষির যান্ত্রিকীকরণের দিকে যাচ্ছি।

কৃষকদের যন্ত্রপাতি কেনার সুযোগ করে দেওয়ার কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘আমরা কৃষকদের কৃষি যন্ত্রপাতি দেব। সেটা ধান কাটার মেশিন বা ধান লাগানোর মেশিন। আগে যেটা ৫০ ভাগ ছিল, এখন ৬০ ভাগ সরকার দেবে। উপকূলীয় ও হাওর এলাকায় আমরা ৭০ ভাগ দেব। অর্থাৎ কোনো কৃষি যন্ত্রপাতির দাম ১০ লাখ টাকা হলে সরকার দেবে সাত লাখ টাকা, বাকি তিন লাখ দেবেন কৃষক।’

অনুষ্ঠানে মোট ৫টি ক্যাটাগরিতে ৯ জন ব্যক্তি ও ৩ টি প্রতিষ্ঠানকে ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা পুরস্কার প্রদান করা হয়। উদ্যোক্তা তৈরির জন্য ক্ষুদ্র ঋণের সুদের হার কমানো উচিত জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, উদ্যোক্তা তৈরি হলে বিনিয়োগ বাড়বে, যা দেশের অর্থনীতিতে প্রভাব ফেলবে। ক্ষুদ্র ঋণের সুদের হার কমাতে হবে। বাংলাদেশ আজ যে অবস্থানে এসেছে তার জন্য এ রকম উদ্যোক্তাদের ভূমিকা রয়েছে।

আইনিউজ/এইচএ