বিশ্বের প্রথম হিজাব পরা নারী কুস্তিগির

ফিচার ডেস্ক: রেসলিং রিংয়ের ভেতরে তার নাম ‘ফিনিক্স’। গ্রিক পুরাণ, চৈনিক পুরাণ অথবা মিশরীয় পুরাণে আগুনপাখি হিসেবে পরিচয় দেয়া হয়েছে ‘ফিনিক্স’ পাখির। অবিনশ্বর, অমরত্বের প্রতীক এই পাখিটিকে দমাতে পারেনি তীব্র আগুনও। পুড়ে গিয়েও ছাই থেকে পুনর্জন্ম হয়েছিল যার।

মালয়েশিয়ার মুসলিম ঘরে জন্ম নেওয়া উনিশ বছরের তরুণী নর ডায়নাও যেনো পুরাণের আগুনপাখি। হিজাব পড়ে রেসলিং রিং এর ভেতরে ফিনিক্স পাখির মতোই বিরাজ করেন এই নারী রেসলার।

সম্প্রতি নর ডায়না আলোচনার কেন্দ্রে। তার কারণ, ডায়ানাই পৃথিবীর সর্বপ্রথম হিজাব পরিহিত কুস্তিগীর। শুধু রেসলিং নয়, তিনি পরিবারের সাথেও কাটান অনেকটা সময়। অনলাইনেও তার জনপ্রিয়তা দিন দিন বাড়ছে।

চলতি বছরের জুলাইয়ে মালয়েশিয়ায় অনুষ্ঠিত হয়েছিলো ‘মালয়েশিয়া প্রো রেসলিং’। সেখানে ফাইনালে দেখা গিয়েছিলো হিজাব পরা এক কমবয়সী নারী রেসলারকে। রিংয়ের ভেতর যেনো অনেক স্বাচ্ছন্দের সাথেই প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করতে প্রস্তুত থাকেন তিনি। প্রথম নারী হিসেবে ‘রেসেলকন চ্যাম্পিয়ন’ হন ফিনিক্স।

ফিনিক্স তার রেসলিং ক্যারিয়ারের শুরুতে মুখে মাস্ক ব্যবহার করতেন। মাস্ক পরিহিত অবস্থায় রেসলিং ম্যাট এর ভিতরে ফিনিক্স প্রতিপক্ষের জন্য ছিলো একটি ভয়ের নাম।

২০১৮ সালে এসে মাস্ক পরা বাদ দিয়ে দেন ‘ফিনিক্স’ খ্যাত নর ডায়না। মাস্কের বদলে তিনি শুরু করলেন হিজাব পরা। হিজাব পরেই তার চেয়ে বেশি অভিজ্ঞদেরও হারিয়ে দিতে লাগলেন রেসলিং এ।

ছোটবেলায় নাকি তিনি দারুণভাবে ভিডিও গেমের প্রতি আসক্ত ছিলেন। ভিডিও গেম ভালোবাসতেন ডায়না, আর এই ভিডিও গেমের প্রীতিই তাকে রেসলিং রিং এ আসার জন্য উদ্বুদ্ধ করতো।

নর ডায়না যেনো আসলেই ফিনিক্স। পৌরাণিক চরিত্রের মতো তিনি নারীশক্তির আরেক উদাহরণ। ফিনিক্স নাম নিয়েই তিনি বারবার ফিরে আসবেন রেসলিং ম্যাটে।

আইনিউজ/এসডি