‘বুয়েট চাইলে ছাত্র রাজনীতি নিষিদ্ধ করতে পারে’

ছাত্র রাজনীতি নিষিদ্ধের বিপক্ষে প্রধানমন্ত্রী

ঢাকা : ছাত্র রাজনীতি নিষিদ্ধের দাবি নাকচ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেছেন, ‘রাজনীতি একটা প্রশিক্ষণের বিষয়, এটা ছাত্ররাজনীতি থেকে তৈরি হয়। একটা ঘটনার জন্য ছাত্ররাজনীতি বন্ধ করা যৌক্তিক নয়। বুয়েট চাইলে সেখানে ছাত্ররাজনীতি নিষিদ্ধ করতে পারে।’

বুধবার (০৯ অক্টোবর) বিকালে প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে ভারত ও যুক্তরাষ্ট্র সফর পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে বুয়েটের শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ হত্যার বিষয়ে ছাত্ররাজনীতি বন্ধের প্রশ্ন নিয়ে কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।

বুয়েটের শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ হত্যার পর ছাত্ররাজনীতি বন্ধের দাবি ওঠে। ছাত্র রাজনীতি বন্ধ করা হবে কিনা এ বিষয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমি নিজেও ছাত্ররাজনীতি করে এসেছি। তাই আমি দেশের কোথায় কী হচ্ছে, আমি এখান থেকেই সব দেখাশোনা করছি। কারণ ছাত্ররাজনীতি করে আসলেই রাজনীতি শেখা যায়। আর না হলে উড়ে এসে জুড়ে বসলে ক্ষমতা পেয়ে অপব্যবহার করা শুরু করে। দেশের প্রতি কোনো মায়া থাকে না। কাজেই ছাত্ররাজনীতি বন্ধ করার কোনো যৌক্তিকতা নেই।

তিনি বলেন, এখন যদি বুয়েট ছাত্ররাজনীতি নিষিদ্ধ করতে চায় তাহলে তারা করতে পারে, আমরা তাতে কোনো বাঁধা দেব না।

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, দেশের যত পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় আছে, সবগুলোতে সরকারের প্রচুর অর্থ ব্যয় হয়। একটা ডাক্তার, একটা ইঞ্জিনিয়ার তৈরি করতে প্রচুর অর্থ ব্যয় করা হয়। কাজেই হলে থেকে মাস্তানি করা চলবে না।

সংবাদ সম্মেলনে দেশের প্রতিটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও আবাসিক হলে সাঁড়াশি অভিযান পরিচালনার নির্দেশ প্রদান করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বাংলাদেশে ছাত্র আন্দোলনের উজ্জ্বল ইতিহাস তুলে ধরে তা কলুষিত করার জন্য সামরিক শাসকদের দায়ী করেন আওয়ামী লীগ সভানেত্রী।

তিনি বলেন, “নষ্ট রাজনীতি যেটা, সেটা তো আইয়ুব খান শুরু করে দিয়েছিল, আবার জিয়াউর রহমান এসে শুরু করলো একইভাবে এবং দুইজনের ক্ষমতা দখলের চরিত্র একই রকম।”

শেখ হাসিনা বলেন, “আর ছাত্ররাজনীতি বন্ধের কথা বলেন। আসলে এই দেশের প্রতিটি সংগ্রামের অগ্রণী ভূমিকা কিন্তু ছাত্ররাই নিয়েছেন।

“এই যে একটা সন্ত্রাসী ঘটনা বা এই ধরনের ঘটনা ঘটেছে। অনেক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানেই তো সংগঠন করা নিষিদ্ধ আছে। বুয়েট যদি মনে করে তারা সেটা নিষিদ্ধ করে দিতে পারে। এটা তাদের উপর…

“কিন্তু একবারে ছাত্র রাজনীতি নিষিদ্ধ ব্যান করে দিতে হবে, এটা তো মিলিটারি ডিক্টেটরদের কথা। আসলে তারা এসে তো সবসময় পলিটিকস ব্যান …. স্টুডেন্ট পলিটিক্স ব্যান তারাই করে গেছে।”

বাংলাদেশে রাজনৈতিক নেতৃত্ব ছাত্র রাজনীতি থেকেই উঠে এসেছে বলে মন্তব্য করেন শেখ হাসিনা।

“আমি ছাত্র রাজনীতি করেই কিন্তু এখানে এসেছি।”

সরকারপ্রধান বলেন, “আমাদের দেশের অসুবিধাটা হল বারবার মিলিটারি রুলাররা এসেছে। আর এসে এসে মানুষের চরিত্র হরণ করে গেছে।”