বেশি বেশি চা পানে যতো সমস্যা

স্বাস্থ্য: চা ছাড়া খুব কম মানুষ আছে যাদের সকাল শুরু হয়। এই আধুনিক যুগে চায়ের জায়গায় কফি বা অন্যান্য পয়ানীয় জনপ্রিয় হয়ে ওঠলেও চায়ের জায়গা দখল করতে পারে নি কোনোটিই। পানীয় হিসেবে চায়ের যেমন কোনো তুলনা হয় না তেমনি গ্রামীণ সালিশ কিংবা টং দোকানের আড্ডা চা ছাড়া যেন চলেই না।

অনেকেই বলে থাকেন, চা খেলে ঘুম আসে না। বিষয়টি একেবারেই মিথ্যা নয় কিন্তু। অতিরিক্ত চা পান ঘুমের ব্যাঘাত ঘটাতে পারে। বিশেষ করে যারা সাইলেন্ট স্লিপ বা নিঃশব্দ ঘুমে অভ্যস্ত, তাদের উচিত অতিরিক্ত চা পান এড়িয়ে চলা। কারণ চায়ে যা ক্যাফেইন আছে, তা আপনার ঘুমের জন্য মস্তিষ্কের হরমোনের প্যাটার্নকে প্রভাবিত করে।

অতিরিক্ত চা পান আপনার হজমে সমস্যা সৃষ্টি করতে পারে। মূলত চায়ের ক্যাফেইনের কারণে এমনটা ঘটে। এ ছাড়া আপনার খাবারের পুষ্টির শোষণক্রিয়াকে বাধাগ্রস্ত করে। যেমন, চায়ে ট্যানিন নামে একটি উপাদান আছে যা আমাদের খাবার থেকে আয়রন শোষণকে বাধা দেয়। এই জন্য খাবারের সময় নয় বরং দুই প্রধান খাবারের মাঝখানে চা পান করা উচিত।

মানসিক চাপ উপশম করতে বা আমাদের ব্যস্ত জীবন থেকে একটু বিরতি নিতে আমরা চা পান করি। অনেক সময় এর মাত্রা বেড়ে যায় অনেক। কিন্তু এতে মানসিক চাপ না কমে আরও বেড়ে যায়। কারণ অত্যধিক ক্যাফেইন গ্রহণ মানসিক অস্থিরতা আরও বাড়িয়ে দেয়। ফলে চায়ের পরিমাণ কমিয়ে দেয়া। তবে এর জন্য স্বাভাবিক চায়ের তুলনায় গ্রিনটি বেশ উপকারী।

আইনিউজ/এইচএ