হেলাল আহমেদের ছবিগল্প
ব্যাথিত কাশফুল এবং বিধ্বংসী মিসাইল…..

কাশফুলসহ সমস্ত ফুলই আমার কাছে এক বিষ্ময়। জানিনা কেন আমার মনে হয় যুদ্ধবিধ্বস্ত এ আধুনিক পৃথিবীর বুকে ফুলগুলো বড় দুঃখী, বড় দূর্ভাগা এই ফুলেরা। এই পৃথিবীর বুকে দোলনায় দোল খেতে খেতে ফুলের মতো একটি শিশু যখন মৃত্যুর দিকে ধাবিত হয় তখন আমার মনে হয় এই ফুলগুলো কাঁদে।

যখন এই বাংলাদেশের বুকেই একটি ফুলের মতো সুন্দর মেয়ে কিংবা ফুলের মতো সুন্দর জীবন ধর্ষিতার খেতাব পেয়ে পিছিয়ে যায় এক কোটি ক্রোশ- তখনো এই ফুলগুলো কাঁদে, চিৎকার করে। কিন্তু এমনই হতভাগা ফুল চিৎকার করে ফুলেফেঁপে উঠলেও মানুষ বলে ‘এ ফুল বড় সুন্দর।’ একটিবারের জন্যও বলে না ‘এ ফুল বড় দুঃখী।’

পৃথিবীর একদিকে যখন আধুনিক ড্রোনের হামলায় অকাতরে মানুষ মরে যায় তখনো মানুষ বলে ‘এ ফুল বড় সুন্দর।’ ফুল সুন্দর, কিন্তু ফুল দুঃখীও। অন্তত আমি তাই ভাবি। পৃথিবীর এ নষ্টামি, এই অসাম্যতা, এই নিপীড়নে ফুলও ব্যাথিত হয়, কষ্ট পায়। তাই আমার মাঝে মাঝেই ইচ্ছে করে পৃথিবীর যেখানে মানুষ মরে জমে আছে রক্তের দাগ, সেখানে একটি ফুলের গাছ লাগিয়ে দিয়ে আসি৷ অন্তত এ ফুলের দিকে তাকিয়ে একবার মানুষ বলুক, ‘এ পৃথিবী ফুলের মতো সুন্দর।’

উদার উন্মুখ এ আধুনিক পৃথিবীর বুকে
মানুষ যবে মানুষের বুকে ছুঁড়ে মারে বিধ্বংসী মিসাইল
আমিও সেথা বুক পেতে দাঁড়িয়ে আছি কিউপিড
তুমি আমার এ কাশভরা বুকে একবার ছুঁড়ে মারো
তোমার প্রেমের বিধ্বংসী বোমা।

ছবি: হেলাল আহমেদ
বয়সের ভারে ভেঙে যাওয়া পৃথিবী
তোমার কী দুঃখ হয় এই অমানিবকতার দৃশ্য দেখে?
তোমারও কী কান্না আসে চোখ ভরে
যখন কাশের মতো সুন্দর তোমার বুকেও
ছোট্ট শিশু দোলনায় দোল খেতে খেতে মারা যায়
শালদুধের মতো সফেদ সুন্দর কাশফুলের অভাবে
যদি দুঃখ হয় পৃথিবী তোমার
আমার সাথে চলো
হাতে লয়ে সাদা কাশফুল
বলো, মানুষের কথা বলো
অনেকদিন হয় সত্যিকারের মানুষের গল্প শুনিনা।
ছবি: হেলাল আহমেদ

বড় দুঃসময়ে মুখে হাসির ফুল ফুটিয়েছো কাশফুল
পৃথিবী এখনো সুন্দর হয়নি ততোটা
হয়নি ততোটা কমল, যতোটা কোমল
তোমার লতাপাতার শরীরে সফেদ চামড়া
ভুলে যেওনা এ বাংলাদেশ
বাদামি রঙের এই মানুষগুলোর বুকে
মাল্টিকালার কষ্ট আছে,
বড় দুঃসময়ে ফুটেছো তুমি কাশ
যবে লাথি খেতে খেতে একটা মানুষ বাঁচে।

ছবি: হেলাল আহমেদ

তোমার মতো এমন করে কেউ বুঝেনি
কেউ শুনেনি তোমার মতো অবাক হয়ে,
একটা জীবন কাটিয়ে দিলাম নীলের আকাশ
প্রেম হারানোর হাড় কাপানো নীরব ভয়ে।
তোমার মতো কেউ আসে নি আমার কূলে
কেউ দেখেনি দুঃখ আছে লতায় মোড়া কাশের ফুলে।

ছবি: হেলাল আহমেদ

না পৃথিবী
তোমার এ খামখেয়ালি আবদার আমি মেটাবো না
এখনো যেখানে বুলেটের আঘাতে ছিন্নভিন্ন মানুষের মুখ
সেখানে কীভাবে দেখাই কাশফুলে রাঙা আমার এ মুখাবয়ব
যেখানে এখনো মানুষ চিৎকার করে রুটির জন্য
সেখানে আমি কীভাবে তোমারে শোনাই
নব যৌবনধারী কাশের গল্প?

ছবি: হেলাল আহমেদ

আগেও বলেছি, এখনও বলছি- বলছি বারবার
পৃথিবীকে বাঁচানো দরকার হে কাশ
চলো তুমিই আমার সখা হও
হলুদ ধানের ঘুঙুর পড়া শালিক হও, দোয়েল হও
পাখির মতো সুন্দর চোখ তোমার
উড়তে উড়তে চলে যাও সিরিয়া কিংবা আফগানিস্তানের তপ্ত মরুতে
যেখানে অবিরত ঝরে লাল রক্ত
তুমি সেখানেই ফেলে আসো তোমার সাদা পালক
এটুকু বিশ্বাস রাখতেই পারো
মানুষ ভুলে যায়নি- সাদা শান্তির প্রতীক।

ছবি: হেলাল আহমেদ

তোমার কোমলতা বারবার অবাক করে আমায়
আমি বুঝে ওঠতে পারি না ঠিক
এই আধুনিক যন্ত্রনারায়ণের যুগে কীভাবে এতো
কমল পালক নিয়ে তুমি টিকে আছো?
মোটা চামড়ার ডাইনাসোর টিকতে পারেনি যেখানে
মানুষগুলো বাইনচোদ একেকটা
আগের দিন আর নাই হে কাশ, নেই আগের সময়
এখন সবাই শিক্ষিত, জ্ঞানী, বিজ্ঞানী
বইয়ের লেখা গিলতে গিলতে মানুষ শিখে গেছে
ঈশ্বরকেও ব্যবসায়ীক কাজে লাগানো যায়।

তোমায় দেখে অবাক হই কাশফুল
তুমি কীভাবে টিকে আছো
আসন্ন ধ্বংসের আতঙ্ক বুকে ধরা এ পৃথিবীর বুকে!

ছবি: হেলাল আহমেদ

মানুষের কথা ছাড়ো
এসো একান্তে দুটি কথা বলি
নদীর কথা, লতার কথা
জীবনের কথা
অথবা এর থেকেও কোমল, আরামদায়ক যদি কিছু থাকে
মানুষের কথা বলো না
এগুলো ফের অ্যামিবা হয়ে গেছে
মানুষ আর বুঝে না কাশফুলের বুলি
মানুষের সখ্যতা আজ মিইসাইল আর বোমারু বিমানের সাথে।

ছবি: হেলাল আহমেদ
তোমার রূপ-লাবণ্য
যেন যৌবনের সাদা বক পক্ষি
তীব্র শক্তি তোমার পাখায়
মাঝে মাঝে ইচ্ছে করে
তোমার পিঠে চড়ে প্রদক্ষিণ করি সমস্ত পৃথিবী
মাটিতে মানুষের লাশ, কবর
আজ যেন পুরো পৃথিবীটাই এক
শরনার্থী শিবির।
ছবি: হেলাল আহমেদ

ফের তো চলে যেতেই হবে
চোখ বন্ধ করলে যে অন্ধকার জাগে চোখে
সেই পরকালের গভীর গুহায়
ভাবছি আমার আদিসত্তার জন্য তোমার কিছু অংশ নিয়ে যাবো
কপাটহীন কবরে যখন নেমে আসবে গাঢ় অন্ধকার
তখনি সুইচ টিপে জ্বালিয়ে দেব
কাশফুলের লাইট
আবিষ্কারটা কেমন হয়েছে বলো?

ছবি: হেলাল আহমেদ

এবার আমি চাষা হবো
তোমার বুকের জমিন হবে চাষের ভূমি
কাশের বিচি ছড়ায়ে দেব তোমার বুকে
তোমার বুকেই আমার হয়ে
জন্ম নিবে আবার তুমি।

তারপর আমি প্রেমিক হবো মনে রেখো
সুজন-কুজন সকল জনে বাসবো ভালো,
এই পৃথিবীর বুকে যখন নামবে আঁধার
জ্বালিয়ে দেব আবিষ্কৃত কাশের আলো।

ছবি: হেলাল আহমেদ

তুমি কাশফুল
মাঝে মাঝে পাখিওতো হতে পারো
দুপেয়ে মানুষ-কল্পনায় রাজা-বাদশা হয়ে যায়
তুমি পাখি হতে পারো না?
সবুজ পাড়ের সাদা শাড়ি পড়া
অদ্ভুত সুন্দর এক সুখের পাখি হও তুমি
রেডিয়েশনের যুগে পাখিদের অস্তিত্ব আজ বিলীন।

ছবি: হেলাল আহমেদ

জানি আমার এ নষ্ট হাতে বড় কষ্ট হয় তোমার
তবে জেনে রেখো
তারচেয়েও আজ নষ্ট এ পৃথিবী
এখানে বোমা ফাটে, শিশুর চোখ উগড়ে ফেলে
মানুষরূপী জানোয়ার
অনেক তো পৃথিবীর বুকে, নদীর ধারে ফুটলে
এবার ওই ধর্ষিতা মেয়েটির যোনিতে ফোটে দেখাও দেখি
নাকি তোমারও আছে কালিমা লাগার ভয়?
ভুলে যেও না কাশফুল
এ ধর্ষিতা মেয়ে তোমার স্বজনই হয়।

ছবি: হেলাল আহমেদ

ভাবছি একবার ফিলিস্তিনের ক্যাম্পে যাবো
চটের ব্যাগ ভরে নিয়ে যাবো তোমায় হে কাশফুল
যেখানে যেখানে রবে রক্তের দাগ
সেখানেই লাগিয়ে দেব তোমায়
পৃথিবীর বুকে রক্তের দাগ বেমানান
আমি চাই সমস্ত পৃথিবী তোমার মতো
সাদা, সুন্দর হোক।

ছবি: হেলাল আহমেদ

অনেক কথা হলো
এবার একটু হাসো?
হাসতে হাসতে, হাসতে হাসতে
পৃথিবীর বুকে ভাসো।

দেখো সবাই প্রেম নিবেদনে নিয়ে যায় তোমায়
আমিই নাহয় তোমায় একবার যুদ্ধবিধ্বস্ত একটা
পৃথিবীর গল্প শোনালাম
সে সুখেই নাহয় হাসো।