সিলেটে ঊর্ধ্বমুখী শীতকালীন সবজির দাম

সিলেট: বাঙালির খাবারের প্রতিদিনকার সবজি আলু। পুষ্টিগুণ সমৃদ্ধ এ সবজিকে ভাতের বিকল্পও বলা হয়ে থাকে। সহজলভ্য হওয়ায় সবশ্রেণির মানুষের কাছেই জনপ্রিয় এ সবজি। তবে এবার বাড়ছে এই সবজির দামও গত এক সপ্তাহের ব্যবধানে সিলেটের বাজারে আলুর দাম প্রায় দ্বিগুণ হয়ে গেছে।

এক সপ্তাহ আগেও যে আলু বিক্রি হতো প্রতি কেজি ১৮ টাকায় তা এখন বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৫ থেকে ৩০ টাকাতে।

আর বাজারে আসা নতুন আলোর দাম তো আরও চড়া। প্রতি কেজি নতুন আলু ৬০-৭০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

কেবল আলু নয়, সিলেটে বাজারে বাড়ছে সব ধরণের সবজির দাম। সবজির ভরা মৌসুম শীতকাল। এই সময়ে নানা ধরণের সবজি পাওয়া যায় বাজারে। সিলেটের বাজারগুলোতেও এসে গেছে শীতকালীন সবজি। তবে সাধারণের ক্রয়ক্ষমতার বাইরে। ফলে বাজারের সবজি কেনার বদলে দেখেই সন্তুষ্ট থাকতে হচ্ছে অনেক ক্রেতাদের।

নগরীর শাহী ঈদগাহ এলাকায় ভ্যানগাড়িতে করে সবজি বিক্রি করেন মফিজ মিয়া। তিনি জানান, বর্তমানে প্রতি কেজি টমেটো ১০০টাকা, শিম ৬০, ফুলকপি ৭০, বাঁধাকপি ৪০ টাকা করে বিক্রি করছেন তিনি।

পাশেই ঠেলাগাড়িতে করে সবজি বিক্রি করছিলেন আরেক বিক্রেতা সাইদুর রহমান। তিনি জানান, কেজি প্রতি বেগুন ২৫-৩৫ টাকা করে বিক্রি করছেন। প্রতিদিন প্রায় ৬০-৭০ কেজি তালবেগুন বিক্রয় করেন তিনি। এসব বেগুন তিনি নিয়ে আসেন সুবহানিঘাট আড়ত থেকে।

নগরীর আম্বরখানা সবজি বাজারের চিত্রও প্রায় একই। এখানে টমেটো ৮০-১০০ টাকা, শিম ৬০ টাকা, বেগুন ৩০-৪০ টাকা, কাঁচামরিচ ৩০ টাকা, মূলা ৩৫ টাকা, ফুলকপি ৬০ টাকা, বাঁধাকপি ৪০, নতুন আলু ৬০-৭০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

সেখানকার সবজি বিক্রেতা মিলন মিয়া জানান, শীতের সবজি এখনো পুরোপুরি আসেনি। কিছুদিন পর আরও দাম কমতে পারে।

এই বাজারের আলু বিক্রেতারা জানান, পাইকারের কাছ থেকে বেশি দামে কিনতে হয়, তাই দাম বেড়েছে। পাইকারি বিক্রেতারা নতুন আলুকে ধুয়ে চকচকে করে আরও বাড়তি দামে বিক্রয় করছেন। ফলে তাদেরকেও বাড়তি দামে বিক্রি কতে হচ্ছে।

আলু কিনতে আসা দিন মজুর শাহিনূর বলেন, বাজারে নতুন আলু এলেও দাম অনেক বেশি। পুরনো আলুরও দাম বেড়ে গেছে।

পরিবারের জন্য বাজার করতে আসা আম্বরখানা এলাকার বাসিন্দা রুমেল জানান, শীত এলেও শীতের সবজি বাজারে দাম এখনো চড়া। কিছুদিন আগে ফুলকপি কিনেছিলাম ৪০-৫০ টাকা দরে, এখন দেখছি ৬০-৭০ টাকা। লেবুর ১৫-২০ টাকা হালিতে কিনেছি, এখন ২৫-৩০ টাকা চাচ্ছে।

আইনিউজ/এইচএ